আমের ‘জুসে’ আম নেই

0
157

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের দক্ষিণ সানারপাড় এলাকায় একটি অবৈধ কারখানায় অভিযান চালিয়েছে র‍্যাব-১০ ও বিএসটিআই। নির্বাহী হাকিম সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে সোমবার এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। কারখানায় বিএসটিআইয়ের অনুমতি ছাড়া বোতলজাত জুসসহ বিভিন্ন খাদ্যপণ্য তৈরি হতো। ‘জুস’ তৈরিতে কোনো ফল বা ফলের নির্যাস ব্যবহার করা হতো না। পরীক্ষাগার ছাড়া অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে এসব পণ্য উৎপাদন হতো। ভ্রাম্যমাণ আদালত এসব পণ্য তৈরির সঙ্গে জড়িত সাতজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেন। ছয় লাখ টাকা জরিমানা করে কারখানাটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

আফসারা অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফুড প্রডাক্টস নামের কারখানায় তৈরি হচ্ছে নকল আমের জুস।আফসারা অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফুড প্রডাক্টস নামের কারখানায় তৈরি হচ্ছে নকল আমের জুস।

কারাখানা একটি হলেও এখানে একাধিক কারখানার নামে নকল পণ্য তৈরি হয়।কারাখানা একটি হলেও এখানে একাধিক কারখানার নামে নকল পণ্য তৈরি হয়।

রং ও কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি হয় ‘কমলার জুস’।রং ও কেমিক্যাল দিয়ে তৈরি হয় ‘কমলার জুস’।

রং ও কেমিক্যালের এই মিশ্রণ ভরা হয় বোতলে।রং ও কেমিক্যালের এই মিশ্রণ ভরা হয় বোতলে।

বিভিন্ন নামী ব্র্যান্ডের নকল ক্যান্ডি তৈরি হয় এই কারখানায়।বিভিন্ন নামী ব্র্যান্ডের নকল ক্যান্ডি তৈরি হয় এই কারখানায়।

নিজেদের নিম্নমানের পাউডার ড্রিংকসে ব্যবহার করা হচ্ছে ‘ট্যাং’-এর নাম। এটি আসলে ‘সৃষ্টি ট্যাং’।নিজেদের নিম্নমানের পাউডার ড্রিংকসে ব্যবহার করা হচ্ছে ‘ট্যাং’-এর নাম। এটি আসলে ‘সৃষ্টি ট্যাং’।

এই অস্বাস্থ্যকর জায়গাটিকেই কারখানা কর্তৃপক্ষ ল্যাব হিসেবে ব্যবহার করছিল।এই অস্বাস্থ্যকর জায়গাটিকেই কারখানা কর্তৃপক্ষ ল্যাব হিসেবে ব্যবহার করছিল।

আফসারা অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফুড প্রডাক্টস কোম্পানির ‘জুস’ তৈরিতে ব্যবহৃত হয় এসব দেশীয় যন্ত্রপাতি।আফসারা অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফুড প্রডাক্টস কোম্পানির ‘জুস’ তৈরিতে ব্যবহৃত হয় এসব দেশীয় যন্ত্রপাতি।

 

source:prothomalo.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here